শিক্ষাঈন

জামানত ছাড়াই ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাবেন শিক্ষকরা

সারা পৃথিবীতেই শিক্ষকতা মহান পেশা হিসেবে পরিচিত। যুগে যুগে সব দেশেই শিক্ষকেরা বিশেষ মর্যাদা পেয়েছেন। তাঁদের প্রতি সম্মান জানিয়ে এবার বিশেষ ঋণ নিয়ে এসেছে ব্র্যাক ব্যাংক, চালু করেছে বিশেষ পারসোনাল

লোন বা ব্যক্তিগত ঋণ ‘দিশারী’। বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্তে যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে কর্মরত শিক্ষক-শিক্ষিকারা এ ঋণ নিতে পারবেন ব্র্যাক ব্যাংকের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, শুধু দেশের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য এটি দেশের প্রথম ঋণ পণ্য। এই ঋণ পেতে জামানতের প্রয়োজন হবে না।

পাঁচ বছরে পরিশোধযোগ্য এ ঋণ। আর সর্বোচ্চ ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ মিলবে। এ ছাড়া আছে বিশেষ সুদের হার ও দ্রুততম সময়ে ঋণ প্রক্রিয়াকরণ।  সরকারি, বেসরকারি ও এমপিওভুক্ত স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও ব্র্যাক ব্যাংকের তালিকাভুক্ত ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা এ ঋণ নিতে পারবেন।

তবে সে জন্য মাসিক বেতন হতে হবে ন্যূনতম ১৭ হাজার টাকা। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, দেশব্যাপী ব্র্যাক ব্যাংকের ১৮৭টি শাখা ও ৬০০টির বেশি এজেন্ট ব্যাংকিং আউটলেট থাকায় দেশের যেকোনো প্রান্তের শিক্ষকেরা সহজেই এ ঋণের আবেদন করতে পারবেন। বিশ্লেষকেরা বলেন, বিভিন্ন পেশাজীবীদের জন্য পৃথক ঋণের ব্যবস্থা থাকলে সুবিধা হলো,

এতে সেই ঋণ সম্পর্কে মানুষ সহজেই জানতে পারেন। দেশের প্রায় সব ব্যাংক ব্যক্তিগত ঋণ দিয়ে থাকে, কিন্তু কারা সেই ঋণ পাবেন, ঋণ পেতে কী শর্ত পূরণ করতে হবে, সে ব্যাপারে একধরনের অস্পষ্টতা থাকে। সুনির্দিষ্ট পেশাজীবীদের জন্য ঋণ থাকলে অন্তত সেই পেশাজীবীরা জানতে পারেন, তাঁদের জন্য পৃথক ঋণ প্রকল্প আছে। ‘দিশারী’ সম্পর্কে ব্র্যাক ব্যাংকের

রিটেইল ব্যাংকিং প্রধান মো. মাহীয়ুল ইসলাম বলেন, ‘শিক্ষাদানের মতো মহৎ পেশায় নিয়োজিত শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য ব্র্যাক ব্যাংক এই মহতী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। মানবসম্পদ উন্নয়নে শিক্ষকদের ভূমিকা অতুলনীয়। একটি জাতির মেধা ও মনন বিকাশে তাঁরা কাজ করেন। সেই অর্থে, জাতীয় উন্নয়নে তাঁদের অবদান সবচেয়ে বেশি। কিন্তু আর্থিক সেবা পেতে তাঁরা অনেক সময় বাধার সম্মুখীন হন। ব্র্যাক ব্যাংক মূল্যবোধভিত্তিক একটি

প্রতিষ্ঠান। তাই এই প্রোডাক্ট তৈরির সময় আমরা শিক্ষকদের কথা চিন্তা করেছি।’ আগ্রহী শিক্ষক-শিক্ষিকারা তাঁদের নিকটস্থ ব্র্যাক ব্যাংক শাখায় অথবা ১৬২২১ নম্বরে ফোন করে এ ঋণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close