আলোচিত নিউজ

রাকা আমার বোন, এটিই তার অপরাধ : কনক সারোয়ার

সম্প্রতি রাজধানীর উত্তরা থেকে আটক হন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বিতর্কিত উপস্থাপক ড. কনক সারোয়ারের বোন নুসরাত শাহরিন রাকা। বর্তমানে র‍্যাবের দুই মামলায় ৫ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন তিনি। এদিকে দেশে বোন

গ্রেফতারের পর মুখ খুলেছেন তার ভাই কনক সারোয়ার। বর্তমান সরকারের সমালোচনা করেন বলেই তার বোনকে হেনস্থা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তার। যদিও র‍্যাবের দাবি, রাকার কাছে মাদক পাওয়া গেছে। জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাতে রাজধানীর

উত্তরা এলাকা থেকে নুসরাত শাহরিন রাকাকে আটকের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাকে হেফাজতে নেয়। পরে রাষ্ট্রবিরোধী কনটেন্টসহ একটি মোবাইল ফোন, একটি পাসপোর্ট ও মাদক আইস রাখার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মোট দুটি মামলা দায়ের করা হয়। পরদিন মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব দাবি করেছিল,

তিনি রাষ্ট্রবিরোধী অপপ্রচারকারী ও ষড়যন্ত্রকারী চক্রের একজন সক্রিয় সদস্য। এসময় তার ভাইকে ‘রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারকারীদের অন্যতম দেশদ্রোহী’ হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়।
পরে বুধবার (৬ অক্টোবর) দুটি পৃথক মামলায় ঢাকার একটি আদালত রাকার পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এদিন শুনানি

শেষে বিচারক যখন রিমান্ড আদেশ দিচ্ছিলেন, তখনই রাকার অশ্রু গড়িয়ে পড়তে দেখা যায়। এদিকে বোনকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার পর তাকে নির্দোষ দাবি করে বিবিসি বাংলায় সাক্ষাৎকার দিয়েছেন তার ভাই যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সাংবাদিক ড. কনক

সারোয়ার। সেখানে তিনি বলেছেন, তার কারণেই তার বোনকে হেনস্থা করা হচ্ছে। ভাইয়ের বিরুদ্ধে থাকা ক্ষোভের কারণে বোনকে এভাবে হেনস্থার মাধ্যমেই বরং দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করা হয়েছে।
কনক সারওয়ার বলেন, ‘গত ১০/১২ দিন আগে তার নামে একটি ফেক ফেসবুক আইডি খোলা হয়। সেই আইডিতে কিছু

পোস্টের পর আমার বোন জিডিও করেছিল থানায় যে তার নামে আইডি খুলে সেখানে উদ্দেশ্যমূলক বিভিন্ন বিষয় দেয়া হচ্ছে। সে আসলে বিচারপ্রার্থী ছিল। এখন বিচার প্রার্থীকেই আসামি করা হয়েছে কারণ সে আমার ছোট বোন। এটিই তার অপরাধ। আমি মনে করি ফেসবুক আইডি থেকে শুরু করে যা কিছু করা হয়েছে সবগুলোই পরিকল্পনা বা নীলনকশার অংশ। তিনি সরকারের

সমালোচনা করলেও কখনোই রাষ্ট্রবিরোধী কিছু করেননি বলে দাবি প্রবাসী এই সাংবাদিকের। এদিকে, কনক সারওয়ারের বোনকে আটকের বিষয়ে কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কনক সারওয়ার বিদেশে বসে প্রধানমন্ত্রী, সামরিক বাহিনী ও সরকার নিয়ে অসত্য তথ্য প্রচার করছে। কিন্তু এ কারণে তার বোনকে হেনস্থা করা হচ্ছে এমন

অভিযোগের জবাবে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, যারা বিদেশে বসে ষড়যন্ত্র করে ও দেশে থেকে তাদের যারা সহায়তা করে তাদের সবাইকেই আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, মিথ্যাচারের একটা সীমা আছে। দেশ, স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী এ অপশক্তিকে অবশ্যই তাদের কঠোর হস্তে দমন করা হবে। সাহস থাকলে দেশে এসে আন্দোলন সংগ্রাম করতে হবে। বিদেশে থেকে এমন অপপ্রচার কেন করে তারা। মন্ত্রী বলেন, যারা প্রশ্রয় দেয়,

তথ্য দেয়, সহযোগিতা করে কিংবা লালন করে তাদেরকেও আমরা দেখবো। নিশ্চয় আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাউকে হয়রানির জন্য করেছে বলে আমি মনে করি না। সূত্র জানায়, বিদেশে পলাতক অবস্থায় সাংবাদিক এবং টিভি উপস্থাপক ড. কনক সারোয়ার দীর্ঘদিন ধরে সরকারবিরোধী তৎপরতায় লিপ্ত। তার বিরুদ্ধে ঢাকায় একাধিক মামলা রয়েছে। দেশে প্রায় এক বছর

কারাবন্দি ছিলেন তিনি। জামিনে জেল থেকে বেরিয়ে ২০১৬ সালে তিনি বিদেশে পালিয়ে যান। তার বর্তমান অবস্থান যুক্তরাষ্ট্রে। বিদেশে বসে তিনি বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে কুৎসা রটনায় লিপ্ত রয়েছেন। এ ছাড়া তিনি সরকারের বিরুদ্ধে ক্রমাগত বিষোদগার চালিয়ে যাচ্ছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close