খেলাধুলা

গ্রেফতার হতে পারতেন আর্জেন্টিনার ফুটবলাররা

নাটক বললেও কি কম বলা হয়? আন্তর্জাতিক ম্যাচ শুরু হয়েছে। মিনিট পাঁচেক পর একদল লোক এসে বললেন ‘খেলা বন্ধ’। কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচে তো ঘটেছে এমন ঘটনাই। আর্জেন্টিনার

চার ফুটবলারের কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম না মানার অভিযোগে শুরুতে বাধা আসে তর্ক-বিতর্ক, দফায় দফায় আলোচনার পর শেষ অবধি বন্ধই হয়ে যায় ম্যাচ। পরে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়, ম্যাচ স্থগিত হয়ে গেছে। ম্যাচ যে আর আপাতত আগামী

কয়েক দিনেও হচ্ছে না, নিশ্চিত হওয়া গেছে সেটিও। কারণ ব্রাজিল ছেড়ে ইতোমধ্যেই আর্জেন্টিনায় চলে গেছেন লিওনেল মেসিরা। ব্রাজিলিয়ান হেলথ রেগুলেটরি এজেন্সির নির্দেশনা অনুযায়ী-স্বদেশি ছাড়া যুক্তরাজ্য, উত্তর আয়ারল্যান্ড, দক্ষিণ

আফ্রিকা ও ভারত থেকে ব্রাজিলে প্রবেশ নিষিদ্ধ। যাদের স্বাস্থ্য ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে, তাদেরও ১৪ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন করতে হবে। কিন্তু এই নিয়ম না মেনেই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা চার খেলোয়াড়কে মাঠে নামিয়ে দিয়েছিল

আর্জেন্টিনা। তারা হলেন-এমিলিয়ানো বুয়েন্দিয়া, এমিলিয়ানো মার্টিনেজ, জিওভানি লো চেলসো ও ক্রিশ্চিয়ান রোমেরো।
আর্জেন্টিনা একাদশে এই চার খেলোয়াড়ের উপস্থিতির খবর পেয়ে ম্যাচ শুরু হতেই মাঠে হানা দেয় ব্রাজিল সরকারের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ।

মাঠে শুরু হয় তর্ক-বিতর্ক, বাদানুবাদ। পরে রেফারি ড্রেসিংরুমে পাঠিয়ে দেন আর্জেন্টাইন খেলোয়াড়দের। স্টেডিয়াম ছাড়ার ঘণ্টা পাঁচেকের মধ্যেই ভাড়া করা বিমানে করে দেশের পথ ধরে আলবিসেলেস্তে দল। যে বিমানে চড়েছেন বিতর্কিত চার

খেলোয়াড়ও। ব্রাজিলিয়ান গণমাধ্যমের প্রতিবেদন, দেশের কঠোর কোয়ারেন্টাইন বিধি ভাঙার কারণে আর্জেন্টাইন ওই চার ফুটবলার গ্রেফতার হতে পারতেন। কেননা অভিযোগ উঠেছে, ইমিগ্রেশনের কাছে তথ্য গোপন করেছে আর্জেন্টিনা দল। এসব ব্যাপারে

জিজ্ঞাসাবাদ করতেই ব্রাজিল পুলিশ হোটেলে গিয়েছিল বলে জানা গেছে। কিন্তু ততক্ষণে আর্জেন্টিনা দল মাঠে চলে আসে। ম্যাচ স্থগিত হওয়ার পর আরও কিছুক্ষণ থাকলে হয়তো পুলিশি জেরার মুখে পড়তে হতো চার ফুটবলারকে। এমনকি বাড়তি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটকও হতে পারতেন তারা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close