আলোচিত নিউজ

বিশ্বের সবচেয়ে ছোট গরু রানী মারা যাওয়ার রহস্য উদঘাটন

গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের অপেক্ষায় থাকা সাভারের ‘রাণী’ নামের ২০ ইঞ্চি উ’চ্চতা ও ২৬ কেজি ওজনের খর্বাকৃতির গরুটি মা’রা গেছে বলে জানিয়েছে শি’কড় এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিডেট কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার

দুপুর ২টার পর রাণীর মৃ’ত্যুর সংবাদ সাভার উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয় নিশ্চিত করার পরপর প্রতিষ্ঠানটির মালিক মৃ’ত্যুর সংবাদটিকে ‘গু’জব’ বলে দা’বি করেন। তবে বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে ফেসবুক পে’জে প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক

মুজতাবা আবুল আহাদ রাণীর মৃ’ত্যুর সংবাদ নিশ্চিত করে পোস্ট দেন। তিনি লিখেন, পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট গরু হিসেবে বাংলাদেশের হয়ে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের স্বীকৃতি পাওয়ার আগেই মা’রা গেল শি’কড় এগ্রোর ‘রাণী’। গিনেস বুক

অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃ’পক্ষের কাছ থেকে পাওয়া তৃতীয় ইমেইলের উত্তর দেওয়ার জন্য বৃহস্পতিবার সকালে তাদের প্রতিষ্ঠানের দুই কর্মকর্তা শি’কড় এগ্রোর সাভার শাখায় যান। তিনি আরও জানান, ছবি তোলার সময় অতিরি’ক্ত গ্যা’সের কারণে পে’ট ফোলা নজরে আসায় তাদের পশু চিকিৎসক

আতিকুজ্জামানের পরামর্শে তৎক্ষণাৎ রাণীকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পরপরই বিশে’ষজ্ঞ ডাক্তাররা রাণীর সুস্থতার জন্য প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেন। রাণী কিছুক্ষণ ভালো থাকার পর মা’রা যায়। চিকিৎসা চলাকালে জী’বিত থাকা অবস্থায়ই রাণীর মৃ’ত্যুর গু’জ’ব ছ’ড়িয়ে দেওয়া হয় বলে তিনি তার পোস্টে মন্তব্য করেছেন। গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস

কর্তৃপক্ষকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাণীর মৃ’ত্যুর কথা জানানো হয়েছে বলেও তিনি পোস্টে উল্লেখ করেছেন। এর আগে, বৃহস্পতিবার সাভার উপজেলা উপ-সহকারী প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল মোতালিব বলেন, মূল’ত গরুটি দুই-তিন দিন থেকে অ’সুস্থ। সেই ফ্রার্মের নিজস্ব ডাক্তার এতদিন চিকিৎসা করেছে। পরে গরুটির

অবস্থার অ’বনতি হলে সাভারে পশু হাসপাতালে আনে দুপুরে। পরে চিকিৎসা দেওয়ার সময় আধাঘ’ণ্টা পরই গরুটির মৃ’ত্যু হয়। মূলত গরুটির খাবারে সম’স্যা হওয়ার কারণে মা’রা গেছে। যাকে বলে ফুট পয়জন। ছোট গরু হিসেবে দানাদার খাবারটা একটু বেশি দিয়ে ফেলায় এই সমস্যা সৃ’ষ্টি হয়েছিল।

অন্যদিকে গরুটি বেঁ’চে থাকার কথা জানিয়ে ফার্মের ব্যবস্থাপক আবু সুফিয়ান বলেছিলেন, রাণীকে বিভিন্ন সময় চু’রির চেষ্টা চালানো হয়েছে। এছাড়া অনেকেই দেখতে আসেন। এসব কারণে তার নি’রাপ’ত্তা হু’মকি ছিল। সম্প্রতি রাণীর মতো আরেকটি গরুও আনা হয়েছে এখানে। নতুন

গরু আনার পর রাণীকে আরেক ঘরে নেওয়া হয়েছে। ওখানে নেওয়ার পরেই রাণী অ’সুস্থ হয়ে পড়ে। তবে মা’রা যাওয়ার খবরটি গু’জব। ছোট গরু হওয়ায় অনেক সময় সে অ’সুস্থ হয়ে পড়ে। পে’ট ফুলে যায়। তবে ফের সুস্থ হয়ে যায়। এটা নিয়মিত প্রক্রিয়া।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close