আন্তর্জাতিক

এবার ভারতের তৈরি সালমা বাঁধে তালেবানের হামলা!

আফগানিস্তানে তুমুল লড়াই চালাচ্ছে তালেবান। দেশটির প্রায় অর্ধেক দখল করে ফেলেছে প্রতিরোধ সংগঠনটি। দেশটির বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে সিঁদুরে মেঘ দেখছে ভারত। আর সেই আশঙ্কা যে অমূলক নয় তা প্রমাণ

করে মঙ্গলবার রাতে ভারতের তৈরি সালমা বাঁধে হামলা চালায় তালেবান। যদিও আফগান বাহিনীর প্রচণ্ড প্রতিরোধে রণে ভঙ্গ দিয়ে পালিয়ে যায় তারা। আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রলায়ের মুখপাত্র ফাওয়াদ আমান টুইট করে জানান, “সালমা বাঁধে

তালেবানের হামলা ব্যর্থ হয়েছে। হেরাত প্রদেশের ওই বাঁধটিকে ধ্বংস করতে হামলা চালায় তালেবান। কিন্তু আফগান সেনাবাহিনীর পাল্টা জবাবে তাদের প্রচুর ক্ষতি হয় এবং তারা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।” গত মাসেই সালমা বাঁধ লক্ষ্য করে পরপর রকেট

হামলা চালিয়েছিল তালেবান। কিন্তু সেগুলো লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। ফের হামলা চালানোর চেষ্টা করতেই পাল্টা হামলার মুখে পড়ে ময়দান ছেড়ে পালায় তালেবানরা। শুধু তাই নয়, নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে ফাওয়াদ আমান আরও জানিয়েছেন,

তালেবানের বিরুদ্ধে লাগাতার হামলা চালাচ্ছে আফগান সেনাবাহিনী। বুধবার গজনি প্রদেশে লড়াইয়ে খতম হয়েছে ৫০ জন তালেবান সদস্য। তালেবান ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে তুমুল লড়াই চলছে হেলমন্দ প্রদেশেও। সেখানে আফগান বাহিনীর হামলা এক

পাকিস্তানি আল কায়দা জঙ্গি-সহ নিহত হয়েছে বেশ কয়েকজন তালেবান সদস্য। সবমিলিয়ে আফগানিস্তানে হারানো জমি উদ্ধার করতে আপ্রাণ চেষ্টা করছে সরকারি বাহিনী বলে জানিয়েছেন তিনি। উল্লেখ্য, আফগানিস্তানের হেরাত প্রদেশে হারি নদীর উপর

তৈরি সালমা বাঁধ ভারত-আফগানিস্তানের বন্ধুত্বের প্রতীক। ২০১৬ সালে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরফ গনির সঙ্গে এই বাঁধ উদ্বোধন করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আফগানিস্তানে পরিকাঠামো নির্মাণে প্রায় ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার লগ্নি করেছে নয়াদিল্লি। ওই প্রকল্পের আওতায় সালমা বাঁধ তৈরি করে ভারত।

সম্প্রতি আফগান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দেশের ১৯৩টি জেলা তালেবান দখল করেছে। এর মধ্যে ১৯টি জেলা পাকিস্তান, ইরান ও উজবেকিস্তান সীমান্তে। সবমিলিয়ে সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরে রয়েছে প্রায় ২০০টি জেলা। প্রচণ্ড লড়াইয়ের পর দেশটির ৩৪টি প্রদেশের মধ্যে টাখার, বাদাখশান, হেরাত, ফারাহ ও কুন্দুজে ১০টি বর্ডার ক্রসিং পয়েন্ট দখল করেছে তালেবান।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close