রাজনীতি

যদি আল্লাহ ভাস্কর্যকে হারাম করে, তবে কোন বাপের বেটা এটাকে হালাল করার সাহস রাখে: ছাত্রলীগ নেতা

ভাস্কর্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেয়ার জেরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসীম উদদীন হল শাখা
ছাত্রলীগের এক নেতাকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কৃত ওই নেতার নাম কবির হোসাইন

তিনি হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। শনিবার (৫ ডিসেম্বর) সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তাকে ব’হিষ্কারের বি’ষয়ে জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সংগঠনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সং’সদের এক জরুরি সি’দ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, সংগঠনের নীতি-আদর্শ ও শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে
জ’ড়িত থাকায় কবির হোসাইন (যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, কবি

জসীম উদদীন হল শাখা ছাত্রলীগ)-কে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হল। তবে, ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ার জেরেই তাকে স্থায়ী ব’হিষ্কার করা হয়েছে বলে ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে। জানা গেছে, গত পহেলা ডিসেম্বর কবির হোসাইন

ফেসবুক আইডিতে ভাস্কর্য নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। সেখানে এক জায়গাতে তিনি উল্লেখ করেন, ‘মামুনুল হক যদি কুরআনের ভু’ল ব্যাখ্যা করে, তার কণ্ঠনালী কে’টে দাও, যদি কুরআন ভাস্কর্যের বি’রুদ্ধে কথা বলে, আল্লাহ এটাকে হারাম করে, তবে কোন

বাপের বেটা এটাকে হালাল করার সাহস রাখে? কুরআনের বি’রোধিতা যেই করবে তার বি’রুদ্ধে দাঁড়াতে ১ সেকেন্ডও অপেক্ষা করবে না ঈমানদাররা! হোক সে মামুমুল হক, মুজিব, জিয়া! হোক সে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, বামাতি বা জামাতি!

ইসলামের প্রতিনিধিত্ব রহিমুদ্দ, সলিমুদ্দি, কলীমুদ্দিরা করে না, স্বয়ং আল্লাহর রাসূল করেন! ইসলাম শিখতে হলে কুরআন হাদিসের জ্ঞান অর্জন করতে হবে, মনগড়া যুক্তি খাটবে না!
একটা কথা মাথায় রাখবেন, আল্লাহর কোন আইন যদি আপনি

না পালন করতে পারেন, সেটা অন্য কথা! তবে যদি তার কোন আইনের বি’রোধিতা করা তো দূরের কথা, অস্বীকারও যদি করেন, আর নিজেকে যতই ঈমানদার দাবি করেন না কেন, মনে রাখবেন, আপনি খাঁটি মু’সলমান না, পাক্কা মুনাফিক! আপনার বি’রুদ্ধে লড়াই করাও খাঁটি মু’সলমানের জন্য ফরজ!

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close