আন্তর্জাতিক

পাকিস্তান থেকে আফগানিস্তানে প্রবেশের চেষ্টা, শতাধিক মানুষের সঙ্গে রক্ষীদের সংঘর্ষ

চামান সীমান্ত এলাকায় দায়িত্বে থাকা এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা বলেন, ‘আজ সকালে ৪০০ জনের মতো মানুষ জোর করে সীমান্ত পার হতে চায়। এ সময় বাধা দিতে গেলে তারা আমাদের দিকে পাথর নিক্ষেপ করে। এর জেরে

আমরা টিয়ার গ্যাস ছুড়তে বাধ্য হই।’ পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের সীমান্ত দিয়ে আফগানিস্তানে প্রবেশের চেষ্টা করা শতাধিক মানুষের সঙ্গে পাকিস্তান সীমান্তরক্ষীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। একপর্যায়ে তাদের ওপর টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করা হয়।

প্রদেশটিতে সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবানের অনেক সমর্থক অবস্থান করে। আফগানিস্তানে তালেবানদের সহায়তা করতে নানা সময়ে দেশটিতে আসা-যাওয়া করে তারা। খবর এএফপির। আজ বৃহস্পতিবার প্রদেশের চামান শহরের দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্ত এলাকায় এ ঘটনা

ঘটে। এর আগের দিনই পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তের স্পিন বোল্ডাক ক্রসিং দখলের দাবি করে তালেবান। নাম প্রকাশ না করার শর্তে চামান সীমান্ত এলাকায় দায়িত্বে থাকা এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা বলেন, ‘আজ সকালে ৪০০ জনের মতো মানুষ জোর করে সীমান্ত পার হতে চায়। এ সময় বাধা দিতে গেলে তারা

আমাদের দিকে পাথর নিক্ষেপ করে। এর জেরে আমরা টিয়ার গ্যাস ছুড়তে বাধ্য হই।’
সীমান্ত পার হতে নিষেধ করলে তারা অবাধ্য হয়ে ওঠে। একপর্যায়ে তাদের লাঠিপেটা করা হয় বলে জানান সীমান্তে দায়িত্ব পালন করা আরও এক কর্মকর্তা। তবে ওই এলাকার পরিস্থিতি এখন

‘নিয়ন্ত্রণে’ আছে বলে জানিয়েছেন চামানের এক জ্যেষ্ঠ সরকারি কর্মকর্তা। গতকাল বুধবার স্পিন বোল্ডাক সীমান্ত ক্রসিংটি দখল করার কথা জানায় তালেবান। সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে আফগান সেনাদের হটিয়ে তালেবান যেসব সীমান্ত ক্রসিং দখল করেছে,

স্পিন বোল্ডাক সেগুলোর মধ্যে সর্বশেষ। কান্দাহার প্রদেশে কয়েক দিন ধরে আফগান সেনা ও তালেবানের মধ্যে তীব্র লড়াই চলার পর পাকিস্তান সীমান্তবর্তী ক্রসিংটি দখলের দাবি করে তালেবান।
বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্পিন বোল্ডাক সীমান্ত ক্রসিংটি ব্যবহার করে সরাসরি পাকিস্তানের বেলুচিস্তানে

প্রবেশ করা যায়। বেলুচিস্তানে কয়েক দশক ধরে তালেবানের অনেক শীর্ষ নেতা ঘাঁটি গেড়েছেন। সেখানে বসবাস করছেন সশস্ত্র এই গোষ্ঠীর বহু যোদ্ধাও। এদিকে মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনীর সদস্যরা আফগানিস্তান ছাড়তে শুরু করার পর থেকে আফগানিস্তানে সংঘাত বেড়েছে। তালেবান চাইছে পশ্চিমা-সমর্থিত

আফগান সরকারকে উৎখাত করতে। এর জেরে আফগান সেনাদের সঙ্গে সংঘর্ষের জেরে হতাহত হয়েছে বহু। আফগানিস্তানের বেশির ভাগ অঞ্চল দখলেরও দাবি করেছে তালেবান। এ কারণে আফগান বাহিনীর সদস্যরা দেশ ছেড়ে পালাতেও বাধ্য হচ্ছেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close