দুঃখজনক বিষয়

নামাজ পড়তে গিয়ে ভ্যা,ন হারালেন জোবেদ, অনাহারে পরিবার

জু,মার নামাজ পড়তে গিয়ে ব্যাটারিচালিত ভ্যানটি চুরি হওয়ায় দি,শেহারা হয়ে পড়েছেন জোবেদ আলী (৪৮)। আয়ের শেষ সম্বলটুকু হারিয়ে চলমান বিধিনিষেধে পরিবার নিয়ে মানবেতর দিন কাটছে তার। লালমনিরহাটের

হাতীবান্ধা উপজেলার বড়,খাতা ইউনিয়নের পূর্ব সারডুবী গ্রামের ভ্যান চালক জোবেদ আলী (৪৮)। স্ত্রী ও তিন মেয়েকে নিয়ে তার অভাবের সংসার। গত বছরে অনেক কষ্টে বড় মেয়েকে বিয়ে দেন। এক মেয়ে মায়া আক্তার পঞ্চম শ্রে,ণি ও জুই চতুর্থ শ্রেণিতে

পড়াশোনা করছে। জায়গা জমি বলতে বাড়িভিটেসহ মাত্র ২০ শ,তাংশ জমি। বড় মেয়ের বিয়ে দেয়ার সময় ১৫ শ,তাংশ জমি বন্ধক রাখেন জাবেদ আলী।
সংসারের কিছুটা অভাব দূর করতে দুমাস আগে ‘আশা’ নামে একটি এ,নজিও থেকে ৫০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে ব্যাটারিচালিত

ভ্যানটি কিনেন জোবেদ। সেই ঋ,ণের টাকাও শোধ হয়নি। প্রতিদিন ভ্যান চালিয়ে যা আয় হয় তা দিয়ে দুবেলা খাবার জোটে পরিবারের। ভ্যানটি চুরি যাওয়ায় পরিবারটি ঘরে চুলাও জ্ব,লেনি।
স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বড়খাতা দোলাপাড়া কেরামতিয়া বড় জামে মসজিদে যাত্রী নামিয়ে দিয়ে মাঠে ভ্যানটি

রেখে জুমার নামাজ পড়তে যান জোবেদ আলী। নামাজ শেষে এসে দেখেন ভ্যানটি নেই। অনেক খুঁজেও ভ্যানটি না পেয়ে হাউমাউ করে কাঁদতে থাকেন। ভ্যানচালক জোবেদ আলী বলেন, ‘ভ্যানটি রেখে নামাজে যাই। এসে দেখি ভ্যান নাই। ভ্যানটা হারিয়ে বর্তমান আমি পঙ্গু। এদিকে স্ত্রীও অসুস্থ। এই গাড়িটাই আমার

একমাত্র আয়ের পথ ছিল। সব হারিয়ে আমি নিঃস্ব।’ তার স্ত্রী জাবেদা বেগম বলেন, ‘আমার স্বামী নামাজ পড়তে গেলে ভ্যানটি চুরি হয়। এই করোনায় কাজকর্ম নাই। ঘরের চুলাও জ্বা,লাতে পারছি না। এখন বাচ্চাদের নিয়ে কী খাব কোনো উপায় পাচ্ছি না।’ বড়খাতা দোলাপাড়া কেরামতিয়া জামে মসজিদের সভাপতি

হাবিবুর রহমান বলেন, ‘অসহায় জোবেদ আলী ভ্যান চালিয়ে সংসার চালাতো। চুরি হওয়াতে তার সব শেষ হয়ে যায়। তাকে একটি ভ্যান কিনে দিতে সমাজের বিত্তবান মানুষদের এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ করছি।’ এ বিষয়ে বড়খাতা ইউনিয়ন পরিষদ চে,য়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা জামাল সোহেল বলেন, ‘জোবেদ আলী একজন গরিব ভ্যানচালক তার ভ্যানটি চুরি যাওয়ায় খুবই দুঃখজনক। তার জন্য কোনো ব্যবস্থা করা যায় কিনা দেখছি’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close