খেলাধুলা

আমি ফু’টবল খেলা ছেড়ে দেব, তবুও রোজা ভাঙবো না: মে’সুত ওজিল

স’ম্প্র’তি ইউরোপা লিগের সেমিফাইনালে মে’সুত ওজিল দেখিয়েছিলেন অনন্য দৃ’ষ্টা’ন্ত। অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের বিপক্ষে প্রথম লেগে কর্নারের প্র’স্তু’তি নিচ্ছিলেন আর্সেনাল তা’র’কা। ঠিক তখনই গ্যা’লা’রী থেকে

এক টু’ক’রো রুটি ছুড়ে মারা হয় তার দিকে জা’র্মা’ন মিডফিল্ডারের কাণ্ডে অবাক হয়েছিল ফুটবল বিশ্ব। পায়ের সামনে থাকা রুটির টু’ক’রোটি হাতে তুলে নিয়ে চুমু খান। এর পর কপাল ছুঁয়ে পাশে স’রি’য়ে রাখেন গত মাসের ২৭ তারিখের

ওই ম্যাচের ফ’লা’ফ’লকে পাশকাটিয়ে দ’র্শ’করা অবাক হয়েছেন ওজিলের ওই কাণ্ডে। যার রেশ এখনও কাটেনি।
২০১৪ সালের বিশ্বকাপ জয়ী তা’র’কার রুটি পাশে রাখার একটি ছবি দিয়ে কা’না’ডায় বসবাসরত জেরাড ই নামের টু’ই’টা’র

ব্যবহারকারী একটি পোস্ট দেন। এতে প্রশ্ন করেন সেখানে কি হয়েছে। হাদি করিম নামে অপর ব্যক্তি এই দৃশ্যের ব্যাখ্যা দিয়ে রি’টু’ই“ট করেন, ওজিল একজন মু’স’লি’ম। তার ধর্ম খাবারকে অ’প’চ’য়ের শিক্ষা দেয় না। আ’ল্লা’হকে স’ন্তু’ষ্ট

করতেই তিনি রুটিতে চুমু দিয়েছেন এবং মাথায় ছুঁয়েছেন।
শাহিন নামের আরেক ব্যক্তি টু’ই’ট পোস্টে বলেন, অ্যাতলেটিকোর দ’র্শ’ক’রা ওজিলের সামনে রুটি ফেলেছিল। তিনি তা কপালে ছুঁয়ে পাশে রেখে দিলেন। ই’স’লা’মের সংস্কৃতিতে

খাবারের অ’প’চ’য়ে কোনো সুযোগ নেই। ইউরো কাপের গেলো মৌ’সু’মে তুলনামূলক কম ম্যাচে নেমেছিলেন ২৯ বছর বয়সী এই মিড ফি’ল্ডা’র। জা’র্মা’ন জাতীয় দলের কোচ জোয়াকিম লো

পুরো সময় খে’লা’নোর জন্য কোচ তাকে রোজা রাখতে নি’ষে’ধ করেছিলো। জ’বা’বে ওজিলের জ’বা’ব ছিল, রোজা আমার জন্য ফ’র’জ, খেলা নয়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close