ইসলাম ধর্ম

১৬ দিনেও থামেনি বাবার কান্না, মেয়ের কবরের পাশেই দিনের বেশির ভাগ সময় কাটছে এ হতভাগার

মেয়েকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন ছিল তার। উচ্চ মাধ্যমিক পাস করার পর দেশের নামকরা কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানোর ইচ্ছা ছিল। কিন্তু সব স্বপ্ন ধূলিস্যাৎ হয়ে গেল এইচএসসি পরীক্ষার্থী মেয়েকে নিয়ে আনন্দে দিন কাটানোর

কথা থাকলেও এখন শোকে দিন কাটছে বাবার। মেয়ের কবরের পাশেই দিনের বেশির ভাগ সময় কাটছে এ হতভাগার। বলছি রংপুর নগরীর দক্ষিণ কুকরুল এলাকায় dhorshoner পর হ”ত্যার শি’কার হওয়া কলেজছাত্রীর বাবার কথা। যিনি মেয়ের

শোকে অনেকটা পাথরের মতো হয়ে গেছেন। শুধু বাবাই নয়, কলেজছাত্রীর মা-ও এখন পাগলপ্রায়।
এদিকে, দা’ফনের ১৬ দিন পর কবর খুঁড়ে ওই কলেজছাত্রীর লা’শ তোলা হয়। বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মালিহা

খানমের উপস্থিতিতে নগরীর মুনশিপাড়া কবরস্থান থেকে লা’শটি তুলে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ম’র্গে নেয় পুলিশ। নি’হতের মা জানান, ৬ জুন দুপুরে তার মেয়েকে বাড়ি থেকে ডেকে নেন বান্ধবী আইভি এরপর আর বাড়ি না ফেরায় বিভিন্ন

স্থানে খোঁজাখুঁজি করা হয়। পরদিন বাড়ির পাশে পরিত্যক্ত একটি পুকুর থেকে মেয়েটির লা’শ উ’দ্ধার করে পুলিশ। পানিতে ডু’বে মা’রা গেছে মনে করে ওই দিনই তাকে মুনশিপাড়া কবরস্থানে দা’ফন করা হয়। তিনি আরো জানান, তার মেয়ের শরীরে

অসংখ্য আঘা’তের চিহ্ন ছিল। তাকে পরিকল্পিতভাবে হ’ত্যা করা হয়েছে বলে মনে করেন তিনি। ওই কলেজছাত্রীকে দা’ফনের পর স্বজনরা জানতে পারেন, ঘটনার দিন বান্ধবী আইভিকে দিয়ে বাড়ি থেকে তরুণীকে ডেকে নেন প্রতিবেশী মুন্না ও তার বন্ধু আল

আমিন। এরপর নির্জন স্থানে নিয়ে তাকে dhorshoner পর হ”ত্যা করেন তারা। পরে রাতে লা’শ পুকুরে ফেলে দেন।
এ ঘটনায় ১৬ জুন না’রী ও শি’শু নি’র্যাত’ন দ’মন ট্রাইব্যুনালে মা’মলা করেন নিহতের মা। এরপর পরশুরাম থানাকে মা’মলা করে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেয় আদালত। পরে ওই রাতেই

আইভি, মুন্না ও আল আমিনকে গ্রে’ফতার করে পুলিশ। পরশুরাম থানার ওসি আবু মুসা জানান, দা’ফনের ১৬ দিন পর ওই কলেজছাত্রীর লা’শ উ’দ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। তাকে পরিকল্পিতভাবে হ”ত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ম’য়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

সূত্র : ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close