সারা বাংলাদেশ

এইমাত্র পাওয়াঃ সকল ধরনের গনপরিবহন বন্ধ

এইমাত্র পাওয়াঃ সকল ধরনের গনপরিবহন বন্ধ
এইমাত্র পাওয়াঃ সকল ধরনের গনপরিবহন বন্ধ
এইমাত্র পাওয়াঃ সকল ধরনের গনপরিবহন বন্ধ

ক’রো’না’ভা’ইরা’সের ডেল্টা ধরনের প্রকোপ বাড়ায় সারাদেশে ১৪ দিনের শাটডাউনের সুপারিশ করেছে জাতীয় পরামর্শক কমিটি। জানা গেছে, সোমবার থেকে গণপরিবহন বন্ধ হয়ে যাবে।
কোরবানির ঈদের আগের পাঁচ দিন, ঈদের দিন এবং ঈদের

পরের তিন দিন গণপরিবহন বন্ধ থাকবে বলে মন্ত্রিপরিষদ থেকে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলোতে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। বুধবার জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির ৩৮তম সভায় আলোচনা শেষে এ সুপারিশ করা হয়। বৃহস্পতিবার কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য

জানানো হয়। শাটডাউন বলতে কী বোঝানো হয়েছে জানতে চাইলে অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লাহ বলেন, শাটডাউন মানে হচ্ছে সবকিছু বন্ধ থাকবে, শুধু জরুরি সেবা ছাড়া। অফিস-আ’দা’ত, বাজারঘাট, গণপরিবহনসহ সব বন্ধ থাকবে। সবাই বাসায় থাকবে।
তিনি বলেন, জরুরি সেবা বলতে, ওষুধ, ফায়ার সার্ভিস,

গণমাধ্যম ছাড়া সবকিছু দুই সপ্তাহ বন্ধ করে মানুষ যদি এই স্যা’ক্রি’ফা’ইস-ক’ষ্ট’টু’কু মেনে নেয়, তাহলে আগামীতে ভালো হবে। নইলে এখন যেভাবে শ’না’ক্ত প্রতিদিন বাড়ছে, সেটা কোথায় যাবে তা সহজেই অনুমেয়। সুপারিশে বলা হয়, শাটডাউন চলা অবস্থায় জরুরি সেবা ছাড়া যানবাহন, অফিস-আদালতসহ

সবকিছু বন্ধ রাখা প্রয়োজন। এ ব্যবস্থা কঠোরভাবে পালন করতে না পারলে আমাদের যত প্রস্তুতিই থাকুক না কেনো, সংক্রমণ এভাবে বাড়তে থাকলে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অপ্রতুল হয়ে পড়বে।
সভায় আরো বলা হয়, রোগ প্রতিরোধের জন্য খণ্ড খণ্ডভাবে গৃহীত কর্মসূচির উপযোগিতা প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে। অন্যান্য দেশ,

বিশেষত পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের অভিজ্ঞতা থেকে জানা যায়, কঠোর ব্যবস্থা ছাড়া এ ধরনের বিস্তার রোধ করা সম্ভব নয়। ভারতের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞের সঙ্গে আলোচনা করে তাদের মতামত অনুযায়ী যেসব স্থানে পূর্ণ ‘শাটডাউন’ করা হয়েছে

সেখানে সং’ক্র’মণ নি’য়’ন্ত্রণ হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে রোগের বিস্তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়া ও জনগণের জীবনের ক্ষতি প্রতিরোধ করতে কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে সারাদেশে কমপক্ষে ১৪ দিন সম্পূর্ণ ‘শাটডাউন’ দেওয়ার সুপারিশ করছে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Close