স্বাস্থ্য এবং চিকিৎসা

কোভিড: করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে আট সপ্তাহের মধ্যে সর্বোচ্চ মৃত্যু, দশ সপ্তাহের সর্বোচ্চ শনাক্ত

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৫ জন মারা গেছেন, যা গত প্রায় দুই মাসের মধ্যে প্রাণহানির হিসেবে সর্বোচ্চ। এই ২৪ ঘণ্টার মধ্যে নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ৫ হাজার ৭২৭ জন। আক্রান্ত শনাক্তের

সংখ্যার দিক দিয়েও গত ৭০ দিনের মধ্যে এটি সবচেয়ে বেশি। একদিন আগেও শনাক্তের সংখ্যা ছিল ৪৮৪৬ জন। সবশেষ ১৩ই এপ্রিল ৬ হাজার ২৮ জন শনাক্ত হওয়ার পর এটিই শনাক্তের হিসেবে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৩ হাজার ৭৮৭ জনে।

আর মোট সংক্রমণের সংখ্যা ৮ লাখ ৬৬ হাজার ৮৭৭ জন।
গত ২৪ ঘণ্টায় ২৮ হাজার ২৫৬টি নমুনা পরীক্ষা করে এই তথ্য পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পরীক্ষা করা নমুনার ২০.২৭ শতাংশের মধ্যে করোনাভাইরাস উপস্থিতি পাওয়া গেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী এই সময়ের মধ্যে সুস্থ

হয়েছেন ৩ হাজার ১৬৮ জন। মোট সুস্থ হওয়া মানুষের সংখ্যা ৭ লাখ ৯১ হাজার ৫৫৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৮৫ জনের মধ্যে পুরুষ ৫৫ জন আর নারী ৩০ জন। সবচেয়ে বেশি ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে খুলনা বিভাগে। এছাড়া ঢাকায় ১৯জন, রাজশাহীতে ১৮ জন, চট্টগ্রামে ৭জন, ময়মনসিংহে ৩ জন এবং বরিশাল ও সিলেটে ১ জন করে মারা গেছেন। এই মুহূর্তে

সরকারি-বেসরকারি মিলে মোট ৫২৮টি পরীক্ষাগারে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। এর মধ্যে মোট ১২৬টি পরীক্ষাগারে আরটিপিসিআর পদ্ধতিতে নমুনা পরীক্ষা করা হচ্ছে।
এছাড়া ৩৫৬টি সরকারি ল্যাবে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন এবং ৪৩টি পরীক্ষাগারে জিন এক্সপার্ট পদ্ধতিতে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা চলছে। বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বুধবার

নাগরিকদের সতর্ক করেছে যে কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নাগরিকরা সরকারের নেয়া কার্যক্রমের সহযোগিতা না করলে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে বাংলাদেশের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি ‘শোচনীয়’ অবস্থায় চলে যেতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close