মানবাতা ও সমাজ

যারা এতি’মদের ভালোবাসে, মুহাম্মদ (স.) তা’দের জান্নাতের সুসংবাদ দি’য়েছেন

এতিম অবস্থায় পৃথিবীতে আগমন করে’ছেন।পিতৃছায়াহীন বিষাদময় জী’ব’নে’র কী যে যন্ত্রণা,তা তিনি মর্মে মর্মে উ’প’ল’ব্ধি ক’রে’ছে’ন।তাই তিনি স’র্ব’দা এতি’মদের

ভা’লো’বা’স’তেন,তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করতেন, তাদের
এতিম অবস্থায় পৃথিবীতে আগমন করে’ছেন।পিতৃছায়াহীন বিষাদময় জী’ব’নে’র কী যে যন্ত্রণা,তা তিনি মর্মে মর্মে উ’প’ল’ব্ধি ক’রে’ছে’ন।তাই তিনি স’র্ব’দা এতি’মদের

ভা’লো’বা’স’তেন,তাদের সর্বাত্মক সহযোগিতা করতেন, তাদের
মাথায় স্নেহের পরশ বুলিয়ে দিতেন এবং এতিমের স’ম্প’দ গ্রাস করাকে ধ্বং’সাত্ম’ক কাজ বলে ঘো’ষণা করেছেন।এতি’ম’কে ভা’লো’বাসতে হবে হৃদয়ের গভীর থেকে।আল্লাহ তায়ালা এতি’মে’র সম্প’দ বুঝিয়ে দেয়ার

প্রতি গু’রুত্বারোপ ক’রেছেন।যারা এতিমের সম্পদ লুণ্ঠন
করে,তা’দে’র প্রাপ্য অ’ধি’কার আদায় করে না,এমন পা’পি’ষ্ঠ’দে’র ব্যা’পা’রে কঠোর পরিনতির কথা বর্ণনা করেছেন।এ সম্পর্কে কো’রআ’ন মজিদে এরশাদ হয়েছে

তো’ম’রা এতিমের স’ম্প’দ বুঝিয়ে দাও এবং অপবিত্র সম্পদকে পবিত্র সম্পদ দ্বারা বদল করো না।আর তাদের স’ম্পদকে
করে।প্রিয়নবী (সা.)তা’দের জন্য জান্নাতের সুসংবাদ প্রদান করেছেন। আবু হুরায়রা (রা.) থেকে ব’র্ণি’ত,রাসু’লুল্লাহ (সা.) এরশাদ ক’রে’ন মু’সলমানদের ওই বাড়ি স’র্বোত্তম,যে

বাড়িতে এতিম আ’ছে এবং তার সঙ্গে ভা’লো ব্য’বহার করা হয়।আর ওই বাড়ি স’ব’চে’য়ে নিকৃষ্ট,যে বাড়ি’তে এতিম ‘আছে অথ’চ তার সঙ্গে অ’ন্যা’য় আচরণ করা হয়।অতঃপর তিনি তার
দুই আ’ঙুলের দিকে ইশারা করে ব’লেন,আমি এবং এতিম প্রতিপালনকারী জান্নাতে এরূপ কা’ছা’কা’ছি অ’ব’স্থা’ন ক’র’ব।(ইবনে মাজাহ)।আবু উ’মা’মা (রা.)থেকে

বর্ণিত,রা’সু’লুল্লাহ (সা.)এরশাদ করেন,যে ব্যক্তি কোনো এ’তিম ছেলে বা মেয়ের মাথায় একমাত্র আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের উ’দ্দে’শ্যে স্নেহের হাত বু’লি’য়ে দেয়,মা’থা’র যত’গুলো
চু’লে’র ওপর দিয়ে তার হা’ত”টি অতিক্রম করবে,সে পরিমাণ

সওয়াব তার আ’মল’নামায় জমা হবে।আর সে যদি এ’তি’মের সঙ্গে সদয় ব্যবহার করে,তাহলে এই দুই আঙুলের মতো আমি এবং সে জান্না’তে অবস্থান করব।অতঃপর তিনি তার দুই আঙুল মো’বারক মিলিয়ে দেখালেন।(মুসনাদে আহমদ)

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close