অন্যান্য

নাপিতের সঙ্গে পালিয়ে বিয়ে করে সংসার করছিলেন গাইনি ডাক্তার

রংপুর নগরীর সেনপাড়া এলাকার গাইনি চিকিৎসক অ’পহৃত হবার ২১ মাস পর ঢাকার মোহাম্ম’দপুর থেকে তাকে উ’দ্ধার করেছে সিআইডি পুলিশ। গ্রে’ফতার করা হয়েছে অ’পহরণকারীকে।
মঙ্গলবার নগরীর কেরানী পাড়া এলাকায়

অবস্থিত সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ খবর জানান রংপুর সিআইডির পুলিশ সুপার মিলু মিয়া বিশ্বা’স। সংবাদ সম্মেলনে সিআইডির পুলিশ সুপার জানান, গত বছরের মা’র্চ মাসে রংপুর নগরীর ব্যবসায়ী আব্দুল গফুরের মেয়ে গাইনি

বিভাগের চিকিৎসক ডাঃ আয়েশা ছিদ্দিকা মিতু (৩৪) অ’পহৃত হয়েছে মর’্মে তার বাবা রংপুরের কোতয়ালী থা’নায় একটি অ’পহরণ মাম’লা দায়ের করেন। মাম’লায় তিনি অ’ভিযোগ করেন নগরীর আলমনগর কলোনির নাপিত রফিকুল ইসলাম

ওরফে বাপ্পি তার মেয়েকে অ’পহরণ করে নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় দীর্ঘদিন পুলিশ চে’ষ্টা করেও অ’পহৃত চিকিৎসক ডাঃ মিতুকে উ’দ্ধার করতে পারেনি। পরে মাম’লাটি তদ’ন্তের জন্য সিআইডি পুলিশের কাছে দেয়া হয়। সিআইডি পুলিশের তদ’ন্তকারী

কর্মক’র্তা এস আই ইউনুছ দীর্ঘদিন ধরে অনুসন্ধান চালিয়ে ডা, মিতুকে সোমবার রাতে ঢাকার মোহাম্ম’দপুর এলাকার চানমিয়া হাউজিং-এর একটি বাসা থেকে উ’দ্ধার করে। অ’পহরণকারী বাপ্পিকে গ্রে’ফতার করে।

সিআইডির পুলিশ সুপার জানান, গাইনি বিভাগের চিকিৎসক মিতু এর আগের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে বাপ্পির সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। তার আগের স্বামীর ঘরের একটি পুত্রসন্তান এবং বাপ্পির ঘরে একটি সন্তান রয়েছে। তারা অনেক দিন আগেই বিয়ে

করে সংসার করে আসছিল বলে সিআইডিকে জানায়। যেহেতু অ’পহরণ মাম’লা হয়েছে সে কারণে তাদের উ’দ্ধার করে আ’দালতে সোপর্দ করা হবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে সিআইডি পুলিশ সুপার জানান, চিকিৎসক মিতুর সাথে ৮/৯ বছর

ধরে বাপ্পির সাথে প্রেমের সম্পর্ক। এর আগেও একবার তারা দুজনে পালিয়ে গিয়েছিল। অনেক বুঝিয়ে তাকে বাড়িতে আনা হলেও আবারো তারা পালিয়ে যায়। অ’পহৃত বাপ্পি পেশায় নাপিত হলেও সে মিতুর বাবার ব্যবসায় ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করত।

দীর্ঘ ২১ মাস যাব’ৎ গাইনি বিভাগের চিকিৎসক মোহাম্ম’দপুরে চেম্বার দিয়ে সেখানে রোগী দেখত। সে যা রোজগার করত তাই দিয়ে বাসা ভাড়াসহ তাদের সংসার খরচ চলত বলে মিতু জানিয়েছে। এছাড়াও ডা. মিতু জানিয়েছে,

বাপ্পির সাথে ২১ মাস বিবাহিত জীবনে তাদের একটি পুত্রসন্তান হয়েছে। তারা সুখেই আছে। বরং তার বাবা তাদের নামে মিথ্যা মাম’লা করেছে বলে দাবি করেছে ডাঃ মিতু।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close