ব্রেকিং নিউজ

হজে পাঠানোর আশ্বাস দিয়ে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিলো এই যুবক

সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, আবার কখনো এমপি, কখনো ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয় দিয়ে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পবিত্র হজ পালনের জন্য মনোনীত ব্যক্তিদের সঙ্গে প্রতারণা করতেন নজরুল ইসলাম

(৫৮)। বুধবার (৫ মে) দুপুরে ডিবি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার এ সব তথ্য জানান।

এ কে এম হাফিজ আক্তার জানান, প্রতারক নজরুল হজ পালনের জন্য মনোনীত ব্যক্তিদের কাছে নিজেকে সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে ফোন দিয়ে বলতেন- ‘আপনাকে নিবন্ধনের জন্য সাড়ে সাত হাজার টাকা বিকাশ বা নগদ নম্বরে পাঠাতে হবে। টাকা না পাঠালে আপনার মনোনয়ন বাতিল করা হবে।’ওই ব্যক্তি

টাকা পাঠাতে সম্মত হলে একটি বিকাশ বা নগদ নম্বর দিয়ে টাকা পাঠাতে বলতেন। এভাবে প্রতারণা করে নজরুল হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা। এর আগে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে পাঠানোর প্রলোভন দেখিয়ে মুসল্লিদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ডিএমপির গোয়েন্দা সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল

ক্রাইম বিভাগ খুলনা থেকে নজরুলকে গ্রেফতার করে। ডিবির এই কর্মকর্তা বলেন, ‘গত ২৬ এপ্রিল মফিজুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তিকে নোয়াখালী-১ আসনের সংসদ সদস্যের ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয়ে ফোন দিয়ে নজরুল বলেন, ‘তিনি এমপি মহোদয়ের মাধ্যমে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ করার ব্যবস্থা করে দেবেন।

নিবন্ধন বাবদ সাড়ে সাত হাজার টাকা লাগবে। অন্যথায় তার হজ করা হবে না। চক্রটি বিভিন্ন জায়গায় এভাবে ফোন দিতে থাকায় ভিকটিমদের মধ্যে অনেকে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য ধর্ম মন্ত্রণালয় পরিচালিত হজ কল সেন্টারে (০৯৬০২৬৬৬৭০৭) ফোন করলে বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের নজরে আসে। পরবর্তীতে ধর্মবিষয়ক

মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মুহা. ইয়াকুব আলী জুলমাতি বাদী হয়ে শাহবাগ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। মামলার পর ডিবি-সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের অর্গানাইজড ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে নজরুলকে গ্রেফতার করে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close