অপরাধ মূল্যক

জরিমানা দেওয়ার ভয়ে পুলিশকে দেখেই মাস্কের বদলে পলিথিন পড়ে নিল ফল বিক্রেতা, ভিডিও ভাইরাল

গতবছর থেকে করোনা ভাইরাস প্যানডেমিক রীতিমতো অতিষ্ঠ করে তুলেছে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রাকে। গতবছরের ছয় মাস লকডাউনে রীতিমতো অর্থনৈতিক ভিত ভেঙে গেছে বাংলায়। আসলে অনেকেই তাদের কাজ হারিয়েছে

সম্প্রতিকালে। নিরুপায় হয়ে পেট চালানোর জন্য কোনরকম কোন একটি কাজ করে জীবন গুজরান করছে অনেক মানুষ। তবে গত বছরের শেষের দিক থেকে করোনা সংক্রমনের প্রভাব একটুখানি কমায় অনেকটায় স্বস্তিতে ছিল দেশবাসী তথা বিশ্ববাসী।

তবে নতুন বছরের শুরুতে আরও প্রভাব কমেছিল করোনার। ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছিল পৃথিবী। আগেকার মত মানুষ আবার সুস্থভাবে বিনা বাধাতে বিচরণ করতে পারছিল তবে মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে ফের পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমনের সংখ্যা। মার্চ মাসের শেষে ১ লাখ দৈনিক সংক্রমণ হচ্ছিল

দেশজুড়ে। তবে এপ্রিল মাসের শুরুতে করণা সংক্রমণ পরিসংখ্যান রীতিমতো উদ্বেগে ফেলে দিয়েছে দেশবাসীকে। গত রবিবার রেকর্ড সংখ্যক দৈনিক সংক্রমণ হয়েছে ভারতে। শুধুমাত্র 24 ঘন্টায় সেদিন ১ লাখ ৬৮ হাজার মানুষ আক্রান্ত হয়েছিলেন। এই পরিসংখ্যান দেখেই রীতিমতো হোঁচট খেয়েছে দেশের প্রত্যেকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। ইতিমধ্যেই মহারাষ্ট্র, ছত্রিশগড় ইত্যাদি জায়গায় সপ্তাহান্তে

লকডাউন এবং দৈনিক নাইট কার্ফু করার কথা বলে দেওয়া হয়েছে। সংক্রমনের ঊর্ধ্বমুখী গ্রাফ নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য গত বছরের মতো ফের সক্রিয় হয়েছে পুলিশ প্রশাসন। তারা রাস্তায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে নাকি বা প্রত্যেকে মাস্ক পড়ছে নাকি তা খেয়াল রাখছে। এমনকি অনেক জায়গায় মাস্ক না পড়ার

জন্য জরিমানা দিতে হচ্ছে। আসলে গত বছরে করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসার পর মানুষ করণা বিধি মেনে চলতে রীতিমতো ভুলে গিয়েছিলো। তবে সম্প্রতি পুলিশ প্রশাসনের ভয়ে আবার সবাই রাস্তায় বেরোলে মাস্ক পড়ছে।
আট থেকে আশি এখন সবাই স্মার্টফোনে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকে। সারাদিন খাটাখাটনির পর একটু নিজেদের মনকে খুশি করার জন্য বা অতিরিক্ত সময়

অতিবাহিত করার জন্য আট থেকে আশি সবাই সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকে। সোশ্যাল মিডিয়াতে সারাক্ষণ একের পর এক ভিডিও ভাইরাল হয়ে থাকে। মাঝেমাঝে সোশ্যাল মিডিয়াতে হাসির ভিডিও ব্যাপক ভাইরাল হয়ে থাকে। সম্প্রতি এরকম একটি ভাইরাল ভিডিওতে দেখা গিয়েছে এক ফল বিক্রেতা পুলিশকে দেখেই তাড়াতাড়ি করে মাস্ক পড়তে গেছে। আর তখনই তার খেয়াল

হয়েছে তার কাছে তো মাস্ক নেই। পুলিশের মার এবং জরিমানার ভয়ে দোকান থেকে একটি কালো পলিথিন-প্লাস্টিক নিয়ে তার মুখে পড়ে নিয়েছে। এমনভাবে সে পড়েছে যাতে না বোঝা যায় যে সে মাস্ক পড়েনি। কিন্তু কি আর পুলিশের চোখ এড়ায়।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close