হেফাজত ইসলাম

মামুনুল হক সাহেবের দ্বিতীয় স্ত্রীর কথিত ডায়রির ব্যাপক প্রচারিত এই অংশটুকু ভালো করে পড়ুন।

মামুনুল হক সাহেবের দ্বিতীয় স্ত্রীর কথিত ডায়রির ব্যাপক প্রচারিত এই অংশটুকু ভালো করে পড়ুন।

মামুনুল হক সাহেবের দ্বিতীয় স্ত্রীর কথিত ডায়রির ব্যাপক প্রচারিত এই অংশটুকু ভালো করে পড়ুন। না বুঝে আসলে দশবার পড়ুন। কি ভয়ংকর ষড়যন্ত্র!

“আমাকে বিয়ে না করেই গ্রীনরোডের একটি বাসায় রাখেন মামুনুল হক, খরচের টাকাও দিতেন। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তার সাথে অবৈধ মেলামেশা করেছেন মামুনুল। সে আমার জীবনটাকে নরক বানিয়ে ফেলেছে।”

বিশ্লেষণঃ প্রথম বাক্যে লিখা আছে,
#আমাকে বিয়ে না করেই গ্রীনরোডের একটি বাসায় রাখেন মামুনুল হক, খরচের টাকাও দিতেন।” এই বাক্যের মিলটা পরের বাক্যে ভালো করে দেখুন!

দ্বিতীয় বাক্যে লিখা হলো,বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তার সাথে অবৈধ মেলামেশা করেছেন মামুনুল।” বাহ্, কত চমৎকার বাক্যের মিল তাই না? ব্যাক্তি নিজে যখন নিজের ব্যাপারে কিছু লিখে, তখন নিজেকে “তার” বলে সম্বোধন বাংলা

একাডেমি কবে থেকে শুরু করলো! যদি মামুনুল হককে ফাঁসানোর জন্য বাংলা একাডেমি নতুন এই ব্যাবহার শরু করেও থাকে, তবে আমাদেরকে আজীবন ভিন্নটা শিখালো কেনো?

মিডিয়ায় ব্যাপক আলোচিত হওয়ার আগে মাওলানা মামুনুল হক সাহেবের নামের ব্যাবহারে ক্ষেত্রে কখনোই “মামুনুল” ব্যাবহার কখনোই দেখিনি। সব সময় নামের দুই রকম ব্যবহার দেখেছি। ১. মামুন সাহেব। ২. মামুনুল হক সাহেব। কিন্তু “মামুনুল” ব্যবহার মিডিয়াই প্রথম শুরু করেছে। এখনো মিডিয়া ছাড়া অন্য কাউকে মামুনুল ব্যবহার করতে দেখিনি গত ১৫বছর যবত।

বুদ্ধিমানদের ইতিহাস স্বীকৃত কথা হলো, চোর যখন চুরি করে, কিছু না কিছু এভিডেন্স রেখেই পালিয়ে যায়! পুরো রাষ্ট্রশক্তি, “র” আদর্শপোষ্ট মিডিয়া মিলে যাকে ধ্বংস করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছে! এতো কিছুর পরও এতো বড় ভুল কি করে করলো! আমি বলি কি, ষড়যন্ত্র করতে ইন্ডিয়ান প্রশিক্ষণ যথেষ্ট নয়। ইসরায়েল থেকে ঘুরিয়ে নিয়ে আসুন! আল্লাহ মামুনুল হকের মর্যাদাকে আরো উচ্চ করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close