আন্তর্জাতিক

এবার তামিলনাড়ুতে মোদিবিরোধী বিক্ষোভ !

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তামিলনাড়ু সফরের আগে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, কালো পতাকা ও ‘মোদি ফিরে যাও’ লেখা প্ল্যাকার্ড প্রদর্শনের অভিযোগে চেন্নাইয়ের কোয়েমবেদু এলাকা থেকে প্রায় ৬০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ

মঙ্গলবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। ইন্ডিয়া টুডে জানায়, প্রধানমন্ত্রী মোদির বিরুদ্ধে কালো পতাকা বিক্ষোভের জন্য মঙ্গলবার কোয়েমবেদুরে দশ নারীসহ প্রায় ৬০ জনের একটি দলকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিক্ষোভকারীরা মোদির বিরুদ্ধে স্লোগান দেন এবং কালো পতাকা এবং প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। প্রতিবেশী রাষ্ট্রের যুদ্ধাপরাধ নিয়ে জাতিসংঘে আলোচনার সময় শ্রীলঙ্কা সরকারের বিরুদ্ধে ভোট না দেওয়ায় মোদি সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন তারা। বিক্ষোভকারীরা ‘তামিলবিরোধী মোদি’ লেখা প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন

করেন এবং প্রধানমন্ত্রী মোদি ও শ্রীলঙ্কার নেতা মাহিন্দা রাজাপাকসের ছবি প্রদর্শন করেন। বিক্ষোভকারীরা সড়ক অবরোধ করেন, তবে পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের সরিয়ে দেন। মঙ্গলবার বিজেপি রাজ্য সভাপতি এল মুরুগানের হয়ে প্রচারে তামিলনাড়ুর ধারাপুরাম যাওয়ার কথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির।বিক্ষোভকারীরা বলেছেন, ‘ব্রিটেন এবং জার্মানিসহ ২২টি দেশ তামিলদের সমর্থন

করেছে এবং যুদ্ধাপরাধের জন্য শ্রীলঙ্কাকে দায়ী করেছে। কিন্তু, ভারত সরকার ভোট দেয়নি এবং ওয়াকআউট করে, যা শ্রীলঙ্কার প্রতি স্পষ্ট সমর্থন।
এটা শ্রীলঙ্কার তামিল জনগণ এবং এখানকার তামিলদের সঙ্গে বড় ধরনের বিশ্বাসঘাতকতা। তারা আরও বলেন, ‘গৃহযুদ্ধের সময় শ্রীলঙ্কায় অনেক হিন্দু মন্দির ধ্বংস করা হয়েছিল এবং হিন্দুদের হত্যা করা হয়েছিল। তাই বিজেপি সরকারের ভোট না দেওয়া

তামিলদের স্বার্থবিরোধী একটি কাজ। আমরা চাই মোদি ফিরে যান এবং এখানকার জনগণের বিরুদ্ধে বিশ্বাসঘাতকতা করায় তিনি যেন তামিলনাড়ুতে না আসেন। ধারাপুরামে কৃষক বিক্ষোভ ধারাপুরামে মোদির প্রচারণার আগে কৃষকরা তিন বিতর্কিত কৃষি আইনের প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেন। কৃষকরা এই বিতর্কিত কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি জানান। দিল্লিতে প্রতিবাদী কৃষকদের প্রতি একাত্মতা প্রদর্শনও এখানকার বিক্ষোভের উদ্দেশ্য ছিল বলে ইন্ডিয়া টুডে উল্লেখ করেছে।

এর আগে, ইন্ডিয়া টুডে টিভিকে মুরুগান জানিয়েছিলেন, ধারাপুরামের জনগণ প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে দেখা করার অপেক্ষায় আছেন। এবারই প্রথম কোনো প্রধানমন্ত্রী এই সংরক্ষিত নির্বাচনী এলাকা পরিদর্শন করছেন। ইন্ডিয়া টুডে টিভিকে মুরুগান বলেছিলন, ‘যেহেতু আমি রাজ্য সভাপতি, তাই এখানকার মানুষের কাছ থেকে আমার অনেক আশা এবং প্রত্যাশা আছে। তারা আমাকে দিল্লি ও তাদের মধ্যে সংযোগ হিসেবে দেখছেন। মানুষের ব্যাপক সমর্থন দেখতে পাচ্ছি। এখানকার মানুষ মোদিকে দেখতে আগ্রহী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close